ঊনপঞ্চাশ বাতাস মুক্তি পাচ্ছে ২৩ অক্টোবর

share on:

ঊনপঞ্চাশ বাতাস দিয়ে খুলছে দেশের সবচেয়ে বড় ও জনপ্রিয় মাল্টিপ্লেক্স স্টার সিনেপ্লেক্স। ২৩ অক্টোবর রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাচ্ছে ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’।

দীর্ঘ ছয় মাস ২৭ দিন পর শর্তসাপেক্ষে ১৬ অক্টোবর দেশের সব সিনেমাহল খোলার সরকারি অনুমতি পেয়েছে। তবে নতুন ও মানসম্মত ছবির অভাবে দেশের বেশিরভাগ প্রেক্ষাগৃহের ফটকে এ সপ্তাহেও ঝুলছে তালা। তবে খুশির খবর শোনালেন নির্মাতা মাসুদ হাসান উজ্জ্বল। ২৩ অক্টোবর মুক্তি দিচ্ছেন তার প্রথম সিনেমা ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’।

সংস্কৃতিবানেরা ফেসবুকে সংস্কৃতি ডটকমের পেইজে লাইক দিন এখানে ক্লিক করে।

মাসুদ হাসান উজ্জ্বল বলেন, “ তাদের সঙ্গে আমাদের চুক্তি হয়েছে। যমুনা ব্লকবাস্টারের সঙ্গে কথা হচ্ছে, তবে এখনো চূড়ান্ত হয়নি। পর্যায়ক্রমে সিনেমাটি আরো বেশি হলে মুক্তি পাবে।”

‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’-এর নামকরণ ও ধরন প্রসঙ্গে নির্মাতা জানালেন, ‘‘সবার জীবনেই কিছু অনুভূতি থাকে, যা ভাষা, প্রতীক বা শব্দে প্রকাশ করা যায় না। অনুভবগুলো অনুভূত হতে হতেই যেন তার প্রকাশের আকৃতি বদলে যায়। এই রকম অনুভূতির ইংরেজি তর্জমা হতে পারে- ইনকমপ্লিট ব্রেথ। এই অসম্পূর্ণ প্রশ্বাসের চলচ্চিত্র ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’। গল্পটা প্রেমের, যে প্রেম কোলাহলকে পরিণত করতে পারে নির্জনতায়।’’

ছোট পর্দায় দেড় যুগ ধরে সফলতার সঙ্গে নাটক, টেলিছবি নির্মাণ করে নির্মাতা ২০১৭ সালে অক্টোবরে দৃশ্য ধারণ শুরু করেন ছবিটির। বিভিন্ন কারণে দীর্ঘদিন সিনেমার কাজ আটকে থাকায় এ বছরের শুরুর দিকে ছবিটি মুক্তির জন্য প্রস্তুত হয়। তবে করোনার কারণে পিছিয়ে যায় সিনেমার মুক্তি।

বাংলা সিনেমার স্বার্থে ছবিটি মুক্তি দিতে চান উল্লেখ করে তিনি ২৩ সেপ্টেম্বর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লেখেন, ‘এই করোনাকালে যদি সিনেমা হল খোলে, তাহলে নতুন ছবি নিয়ে কাউকে না কাউকে এগিয়ে আসতে হবে। এই সময় সিনেমা হলে নতুন ছবি মুক্তি না দিলে আমাদের চলচ্চিত্রশিল্প কী করে ঘুরে দাঁড়াবে! আমি সেই ঝুঁকিটা নিতে ইচ্ছুক।’ তবে এই সময় তিনি শর্ত জুড়ে দেন, সামাজিক যোগাযোগের তাঁর শেয়ার করা অফিশিয়াল ট্রেলারের পোস্টটি যদি লাখখানেক মানুষের ওয়ালে শেয়ার হয়, তাহলেই তিনি সিনেমা হল খোলার সঙ্গে সঙ্গে ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ ছবিটি মুক্তি দেবেন।

এক লাখ শেয়ারের বিষয়টি জানতে চাইলে নির্মাতা জানান, নির্মাতা হিসেবে তিনি দর্শকের জন্য ছবি বানান। সেই দর্শক যদি ছবির দায়িত্ব না নেন, তাহলে তিনি কেন ছবি বানাবেন। এ জন্যই তিনি চান তাঁর পোস্টটি যদি এক লাখ মানুষ শেয়ার দেয়, তাহলেই তিনি ঝুঁকি নেবেন। এই সময় তিনি বলেন, ‘আমার দায়িত্ব হচ্ছে ভালো ছবি বানানো। আমার ছবি দেখে যদি দর্শক বলেন ছবিটি ভালো হয়নি, হতাশ হয়েছি, তাহলে আমি কারওয়ান বাজারের মোড়ে দর্শকের সামনে কান ধরে উঠবস করব। দর্শকদের বলব, আমি খারাপ ছবি বানাইছি।’ এই সময় তিনি আরও জানান, তিনি তাঁর দায়িত্ব থেকে দর্শকদের জন্য ভালো ছবি বানিয়েছেন। মানুষ যদি অনেক অপ্রয়োজনীয় জিনিস শেয়ার দিয়ে ভাইরাল করতে পারে, তাহলে দর্শক ভালো জিনিস কেন ভাইরাল করবেন না। দর্শকের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘দর্শক শুধু বলেন ভালো ছবি হচ্ছে না, কিন্তু দর্শক কেন একটি ভালো ছবিকে সহযোগিতা করবেন না। তাঁদের কি কোনো দায়িত্ব নেই?

দুই ঘণ্টা ৪৫ মিনিটের ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হচ্ছে ছোট পর্দার অভিনেত্রী শার্লিন ফারজানা ও ইমতিয়াজ বর্ষণের। সিনেমাটির মোট পাঁচটি গানের মধ্যে একটি গান করেছেন দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ডদল অর্থহীনের প্রতিষ্ঠাতা ও দলনেতা সাইদুস সালেহীন খালেদ সুমন।

পরিচালনার পাশাপাশি ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’-এর কাহিনি, সংলাপ, চিত্রনাট্য, শিল্প নির্দেশনা এবং সংগীত পরিচালনা করেছেন মাসুদ হাসান উজ্জ্বল নিজেই। শুধু তা-ই নয়, ফটোগ্রাফি ও পোস্টার ডিজাইনও তাঁর করা। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান রেড অক্টোবরের ব্যানারে সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন আসিফ হানিফ, নির্বাহী প্রযোজকের দায়িত্বে সৈয়দা শাওন।

মুক্তির খবরে শার্লিন ফারজানা বললেন, ‘ছবিটি বড় পর্দায় দেখার জন্য দীর্ঘ অপেক্ষা থেকে মুক্তি পাচ্ছি। এটাই আপাতত বড় সুখ। তবে ভয় ভয়ও লাগছে! কারণ মুক্তির পর শুরু হবে নতুন অপেক্ষার। দর্শক-সমালোচকদের মন্তব্যের অপেক্ষা। তবুও সবার প্রতি বিনীত অনুরোধ, হলে এসে সবাইকে ছবিটি দেখার।’

Facebook Comments
share on: